সিলেটে রায়হান হত্যার বিচার চাইলেন যুক্তরাজ্য প্রবাসী বোন রুবা

Published: 14 October 2020, 5:58 PM

পোস্ট রিপোর্ট : এক সাবেক পুুলিশ কর্মকর্তার পূত্র ছিল সিলেটে নিহত রায়হান। কি হতভাগা রায়হান প্রাণ হারানো সেই পুলিশের হাতে। কেবল মৃত্যু নয়, সেই সাথে ছিনতাকারীর অপবাদও দিল তাকে।

এখানে শেষ নয়, মোটরসাইকেল এ্যাকসিডেন্ট, অত:পর গণপিটুনিতে মৃত্যুর খবর ছড়িয়ে দেয় সর্বত্র। সেই খবর রায়হানের পরিবারকে শুধু দেয়নি, পুলিশের স্থানীয় উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকেও বিভ্রান্তিকর তথ্য দেয় হত্যাকারী পুলিশ সদস্যরা। সেই বরাতে গণপিটুনীতে নগরীতে এক ছিনতাইকারী মৃত্যু সংবাদ প্রচার করে একাধিক গণমাধ্যম। সাধারন মানুষের আস্থা ও নির্ভরতা অনন্য ঠিকানা পুলিশ ও সংবাদ মাধ্যমের বিশ^স্ততা এভাবে নড়েবড়ে করে দেয় বন্দর বাজার ফাঁড়ি পুলিশ। কিন্তু মিথ্যাচার টিকেনি বেশিক্ষণ। রায়হান পরিবারের জোরালো প্রতিবাদে ফাঁস হয়ে যায় হত্যা ঘটনা ধামাচাপার কল্পকাহিনী। কিন্তু এতে চরমভাবে মর্মাহত হয়েছেন রায়হানের পরিবার। সেই সাথে আমজনতাও। যুক্তরাজ্য প্রবাসী রায়হানের বোন রুবা আক্তার অশ্রুসিক্ত চোখে বলেন, কেন আমার ভাই ছিনতাই করবে ? কিসের অভাব ছিল আমার ভাইয়ের। আমি লন্ডনে, আমার সব চাচারা আমেরিকা প্রবাসী। সিলেটে আমার নিজস্ব সম্পত্তি রয়েছে। এক ডিসিমেল জমির মূল্য ৯-১০ লাখ। হত্যাকান্ডের সুষ্ট বিচার দাবী করে রায়হানের প্রবাসী বোন রুবা বলেন, আজ আমার ভাইয়ের বউ ২০ বছরের, সে সাদা কাপড় পড়ে বসে আছে। ২ মাসের ভাতিজি কাকে বাবা বলে ডাকবে । আমি বিচার চাই, আমি শুধু নয় দেশের সব মানুষই এ ঘটনার বিচার চায়। বোন জামাই মুফাজ্জিল আলী বলেন, ছিনতাইকারী বানিয়ে মিথ্যা অপবাদের নিন্দা জানাই।