সিলেট কবিতা: মাষ্টারপিস মক্কা পাতায় আমাদের সিলেটভূমি কেমনে ছন্দ পায়?

Published: 26 March 2021, 12:25 AM

শফি আহমেদ: 

উসমানিয়া খেলাফতের, যা অটোমান এম্পায়ার নাম সুপ্রসিদ্ধ, সোনালী যুগে ইউরোপের রাজ পাড়ায় ভালোবাসার ভাব প্রকাশের জন্য বিভিন্ন রঙের সুগন্ধী ফুল ব্যবহার করা হতো। পরবর্তীতে এটা ল্যাঙ্গুয়েজে অব রোমান্স নামে পরিচিতি লাভ করে।
বলা বাহুল্য ঐ শাহী প্রেমিক প্রেমিকাদের হাতভরে ফুলের রঙের বাহাদুরী অগ্রগণ্যতা পেলেও তারা কিন্তু প্রথমে ঝাঁজালো-মিষ্টি গন্ধের ফুলই চয়ন করতেন।  তবে ভাব প্রকাশে শুধু ফুলের রংটাই কোড হিসেবে ব্যবহার করতে পারতেন। যেহেতু উভয়ের মধ্যকার দূরত্ব বজায় থাকতো। তা প্রসঙ্গগত কারণে অতিক্রম করা হতনা। তাই ফুলের রঙের মাধ্যমেই ভাবের আদান প্রদান। প্রতীকী ভাষার আশ্রয় নেয়া হতো।
এখানে রঙিন ফুলের জাগায় যদি তখন মনমাতানো ফুলেল সুগন্ধী ব্যবহার করা যেত হয়তো একটি প্রেমিক মনের গভীর ব্যঞ্জনা একটু বেশী করে ব্যক্ত করা হতো। কেননা গোলাপের গোলাপী শোভা যখন চোখের দর্পনে ভেসে থাকে ইহার অন্তহীন সৌরভ সুবাস সুগন্ধির সাত কাহন মনের ফুলদানিতে পৌঁছে দিতে সক্ষম হয়।
সিলেট আমাদের প্রিয় জন্মভূমি আমাদের অতি কাছের। জন্মভূমির সাথে সুগভীর সম্পর্ক হয়ে থাকে প্রাণের সহিত। তাই জন্মভূমিকে সবচেয়ে ভালো ভাবে জানা যায়। এটাই স্বাভাবিক। তবে আমাদের অতি নিকটতম সিলেটের একটি বাড়তি বৈশিষ্ট্য রয়েছে। সেটা আমরা যেমন জানি আমাদের এই মাটির সহিত পবিত্র মক্কাভূমির মাটির মিল রয়েছে। এটা যখন হজরত শাহ জালালের সঙ্গী চাষণী পীর এক হাতে মক্কার মাটি উপর হাতে সিলেটের মাটি জিহ্বা ধারা চোষে নিশ্চিত হলেন তখনি ওই প্রখ্যাত সাধু সূধীজনরা এখানে স্থায়ী ভাবে ঘর বাঁধতে অভিপ্রেত হলেন।
পবিত্র মক্কাভূমিতে বিদ্যমান বায়তুল্লাহ শরীফ। এ মাটি আল্লাহ পাকের শ্রেষ্ঠতম রাসূল (স:) এর জন্মভূমি। পৃথিবীর মধ্যখান যা বিজ্ঞানীক ভাবে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। এমন অসাধারণ শ্রেষ্ঠতম ভূমির সহিত অতি সাধারণ এক সিলেট আপন মৃত্তিকায় কেমনে মিশে যায়?
ভুবন দিশারী অকাট্য মাষ্টারপিস মক্কা পাতায় আমাদের ছোট্ট সিলেটভূমি কেমনে ছন্দ পায়? সে লীলা আমাদের জানার প্রয়োজন রয়েছে। তাহলে আমাদের জন্মভূমিকে আরো নিবিড় ভাবে জানা যাবে। কিন্তু এতো হলো মরমের কথা। ভূতলের কথা। পাপড়ির আড়ালে সুগন্ধির গল্প। আঁধার রাতের কাজল আঁচলে ঢাকা রজনীগন্ধার নীরবে নিভৃতে সৌরভ অঞ্জলি। ওটাকে এরই মত গহন গভীরে জানতে হবে। সে পর্যন্ত পৌঁছা না হওয়া পর্যন্ত, উসমানিয়া যুগের ল্যাঙ্গুয়েজে অব রোমান্সের কথা স্বরণ করা যায়, আকারে ইঙ্গিতের হাতছানি অনুভব করে আমাদেরকে এগুতে হবে।
  • 3
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    3
    Shares