প্রফেসর লিয়ানা ওয়েন
করোনায় আক্রান্ত হলে কখন নেবেন টিকা?

Published: 13 April 2021, 7:17 AM

পোস্ট ডেস্ক : আপনি যদি করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে থাকেন তাহলে কখন আপনার জন্য টিকা নেয়া উত্তম হবে?

এ প্রশ্নের উত্তর জানা সবার জন্যই আবশ্যক। এমন প্রশ্নের উত্তর দিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের জর্জ ওয়াশিংটন ইউনিভার্সিটি মিল্কেন ইনস্টিটিউট স্কুল অব পাবলিক হেলথের জরুরি চিকিৎসক, ভিজিটিং প্রফেসর ড. লিয়ানা ওয়েন। যদি কারো সম্প্রতি করোনা শনাক্ত হয়ে থাকে অথবা টিকার দুই ডোজের মাঝখানের সময়ে করোনা শনাক্ত হয় তাদের ক্ষেত্রে করোনার টিকা নেয়া অনেকটা জটিল হতে পারে। ড. লিয়ানা বলেন, এক্ষেত্রে টিকা নেয়ার আগে জনগণকে বেশ কয়েকটি বিষয় জানতে হবে। তিনি বলেন, যদি আপনি করোনায় আক্রান্ত হয়ে থাকেন তাহলে লক্ষণগুলোর দিকে নজরদারি করা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। এ ছাড়া টিকা নেয়ার আগে আপনাকে নিশ্চিত হতে হবে যে, আপনি পরিপূর্ণভাবে সুস্থ। এক্ষেত্রে আপনি করোনা পজেটিভ বা আপনার মধ্যে করোনার লক্ষণ দেখা দিলে নিজস্ব স্বাস্থ্য সেবা দানকারীর কাছ থেকে পরামর্শ নিতে পারেন। এ খবর দিয়েছে অনলাইন সিএনএন।
ড. লিয়ানা ওয়েন বলেন, যদি আপনি এসব বিবেচনায় টিকা নেয়ার জন্য উপযুক্ত হয়ে থাকেন তাহলে আপনার জন্য টিকা নেয়া গুরুত্বপূর্ণ। কারণ, প্রাকৃতিকভাবে রোগমুক্ত হওয়ার চেয়ে অবশ্যই উন্নততর, দীর্ঘস্থায়ী এবং সুনির্দিষ্ট সুরক্ষা নিশ্চিত করে টিকা। করোনা ভাইরাস সংক্রমিত হলে এই সুরক্ষা কতটা দীর্ঘ সময় আপনাকে, আমাকে সুরক্ষা দেবে এখনও সে সম্পর্কে আমরা জানি না।
সাম্প্রতিক গবেষণায় দেখা গেছে ফাইজার/বায়োএনটেক এবং মডার্নার টিকা ৬ মাস পর্যন্ত উচ্চ মাত্রায় রোগপ্রতিরোধ ক্ষমতা সৃষ্টি করে। যেহেতু এই টিকাগুলো নতুন, তাই গবেষকরা নিশ্চিত করে বলতে পারছেন না একজন মানুষ টিকা নেয়ার পর কতদিন রোগমুক্ত থাকবেন। অনেকেই এক্ষেত্রে ৬ মাসের বেশি রোগমুক্ত থাকার প্রত্যাশা করতে পারেন।
প্রফেসর লিয়ানা ওয়েন বলেন, টিকার ব্যবস্থা হয়ে গেলে কারো তা নেয়ার জন্য দেরি করা উচিত হবে না। এক্ষেত্রে তাদেরকে লক্ষণগুলোর দিকে দৃষ্টি রাখতে হবে। তাদেরকে নিশ্চিত হতে হবে যে জ্বরসহ করোনার অন্য লক্ষণগুলো মারাত্মক আকার ধারণ করেনি। এমনটা হলেই তারা টিকা নিতে পারবেন। বর্তমানে কারো করোনা শনাক্ত হলে তাকে ১০ দিন আইসোলেশনে থাকতে বলা হচ্ছে। এই নির্দেশনা সবাইকে অনুসরণ করার পরামর্শ দিয়েছেন তিনি। প্রফেসর লিয়ানা ওয়েন বলেন, এমন অবস্থায় ১০ দিন পরে যদি লক্ষণগুলো আর না থাকে অথবা লক্ষণগুলো ম্লান হয়ে আসে তাহলে টিকা নেয়া যেতে পারে। কেউ এসব বিবেচনায় টিকা নিলে তার উচিত হবে দুটি ডোজ টিকাই নেয়া। তার মতে, এই টিকা ভাল কাজ করে দুটি ডোজ নেয়ার পর। তিনি বলেন, প্রথম ডোজ কিছুটা সুরক্ষা দেয়। তবে অনেক স্বাস্থ্য বিষয়ক বিশেষজ্ঞ জানেন না এই সুরক্ষা কতদিন স্থায়ী হবে।
করোনা ভাইরাসের টিকার প্রথম ডোজ এবং দ্বিতীয় ডোজ নেয়ার মধ্যবর্তী সময়ে যদি কারো করোনা পজেটিভ ধরা পড়ে তাহলে সেক্ষেত্রে করণীয় সম্পর্কেও বলেছেন ড. লিয়ানা ওয়েন। তিনি বলেন, এমন ঘটনা এর আগেও ঘটেছে। টিকার প্রথম ডোজ কিছুটা সুরক্ষা দেয়। তবে দুটি ডোজ নেয়া হলে যে পরিমাণ সুরক্ষা দেয়, শুধু প্রথম ডোজ তা দেয় না। এ জন্যই প্রথম ডোজ টিকা এবং দ্বিতীয় ডোজ টিকার মধ্যবর্তী সময়ে কেউ করোনায় আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি থাকে। যদি আপনার এই দুটি ডোজের মধ্যে করোনা পজেটিভ ধরা পড়ে তাহলে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিকে দ্বিতীয় ডোজ টিকা নেয়ার আগে অপেক্ষায় থাকার পরামর্শ দিয়েছেন তিনি। বলেছেন, যতক্ষণ লক্ষণগুলো মিইয়ে না যাবে ততক্ষণ অপেক্ষা করতে হবে। এইসব লক্ষণ সেরে গেলে তারপরই টিকা নেয়া যাবে।

  • 1
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    1
    Share