ইউক্রেন নয়, আগে যুক্তরাষ্ট্রের স্কুলের নিরাপত্তা নিশ্চিতে অর্থায়ন করতে হবে: ট্রাম্প

Published: 28 May 2022, 11:22 AM

পোস্ট ডেস্ক :


রুশ আগ্রাসন থেকে ইউক্রেনকে রক্ষায় দেশটিকে বিলিয়ন বিলিয়ন ডলার সাহায্য দিচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র। তবে দেশটির সাবেক প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্প বললেন, যুক্তরাষ্ট্রের উচিৎ ইউক্রেনের আগে নিজেদের স্কুলের নিরাপত্তা নিশ্চিতের জন্য অর্থায়ন করা। অবশ্য আগ্নেয়াস্ত্রের পক্ষে আয়োজিত এক সম্মেলনে যোগ দিয়ে এ কথা বলেছেন ট্রাম্প। তার বক্তব্য হচ্ছে, যুক্তরাষ্ট্র যদি ইউক্রেনে বিলিয়ন ডলার সাহায্য হিসেবে পাঠাতে পারে, তাহলে দেশের মাটিতে মার্কিন শিশুদের নিরাপদ রাখতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতেও পারা উচিৎ। এ খবর দিয়েছে বিবিসি।

খবরে বলা হয়, যুক্তরাষ্ট্রের হিউস্টনে ন্যাশনাল রাইফেল অ্যাসোসিয়েশনের এক সম্মেলনে যোগ দিয়ে এই প্রস্তাব দেন ট্রাম্প। সম্মেলনটি ছিল মূলত বেসামরিক নাগরিকদের কাছে আগ্নেয়াস্ত্র রাখার পক্ষের এক্টিভিস্টদের। গত মঙ্গলবার টেক্সাসের একটি স্কুলে ভয়াবহ বন্দুক হামলার পর যুক্তরাষ্ট্রজুড়ে আগ্নেয়াস্ত্রের সহজলভ্যতার পক্ষে-বিপক্ষে আলোচনা শুরু হয়েছে। ওই হামলায় ১৯ শিশু এবং দুই শিক্ষক প্রাণ হারান। এর তিন দিনের মাথায়ই এই বক্তব্য দিলেন ট্রাম্প।
নিজের বক্তব্যে তিনি বলেন, ইরাক ও আফগানিস্তানে আমরা ট্রিলিয়ন ট্রিলিয়ন ডলার খরচ করেছি এবং তার বিনিময়ে কিছু পাইনি। পৃথিবীর বাকি দেশ গঠন করার আগে আমাদের নিজেদের সন্তানদের জন্য নিরাপদ স্কুল গঠন করা উচিৎ।

এ মাসের শুরুতে যুক্তরাষ্ট্রের কংগ্রেস ইউক্রেনে প্রায় চার হাজার কোটি ডলার সামরিক সহায়তা পাঠানোর পক্ষে ভোট দিয়েছে। ফেব্রুয়ারিতে রাশিয়া ইউক্রেনে অভিযান শুরু করার পর যুক্তরাষ্ট্রের আইন প্রণেতারা এখন পর্যন্ত প্রায় ৫ হাজার ৪০০ কোটি ডলার সহায়তা পাঠিয়েছে ইউক্রেনে। ট্রাম্প চাইছেন এই অর্থ আগে মার্কিন শিশুদের নিরাপত্তায় ব্যয় করা হোক।
যদিও তিনি যেখানে এই বক্তব্য দিয়েছেন সেটি আয়োজন করেছে আগ্নেয়াস্ত্র আইন সহজ করার পক্ষের সংগঠনই। ট্রাম্প তার মূল বক্তৃতায়ও আগ্নেয়াস্ত্র আইন কঠোর করার বিরোধিতা করেছেন। তার দাবি, ‘অশুভ’ শক্তির বিরুদ্ধে নিজেদের রক্ষা করতে সভ্য আমেরিকানদের আগ্নেয়াস্ত্রের অনুমতি দেয়া প্রয়োজন। স্কুলের নিরাপত্তা নিশ্চিতে প্রতি স্কুলে অন্তত একজন সশস্ত্র পুলিশ অফিসার রাখা এবং মেটাল ডিটেক্টরসহ কেবলমাত্র একটি প্রবেশপথ রাখার প্রস্তাব করেন তিনি। তিনি আরও বলেন, অস্ত্র হাতে একজন মন্দ লোককে থামানোর একমাত্র পথ হচ্ছে, অস্ত্র হাতে একজন ভালো মানুষ। তাই অস্ত্র ব্যবহারের ওপর কড়াকড়ি আরোপ না করে বন্দুকধারীদের মানসিক স্বাস্থ্যের ওপর নজর দেয়া গুরুত্বপূর্ণ।

বক্তব্যে টেক্সাসের ইউভালডের স্কুলে হওয়া গুলির ঘটনায় নিহতদের নাম নেয়ার পর সাবেক প্রেসিডেন্ট বলেন, অশুভ শক্তির উপস্থিতির কারণে আইন মেনে চলা নাগরিকদের অস্ত্রধারণ যৌক্তিক, তাদের নিরস্ত্র করা নয়। ট্রাম্প যখন আগ্নেয়াস্ত্রের পক্ষে এসব যুক্তি দিচ্ছেন তখন অনুষ্ঠানের ভেন্যুর বাইরে শত শত বিক্ষোভকারী ন্যাশনাল রাইফেল অ্যাসোসিয়েশনের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ প্রদর্শন করেন।