বরিস জনসনের জন্য হাত তুললেন না কেউ

Published: 18 July 2022, 1:46 PM

পোস্ট ডেস্ক :


যুক্তরাজ্যের কনজারভেটিভ পার্টির নেতা এবং পরবর্তী প্রধানমন্ত্রী হতে প্রচার-প্রচারণা চালাচ্ছেন কনজারভেটিভ পার্টির নেতারা।

প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন প্রধানমন্ত্রিত্ব ছেড়ে দেওয়ার ঘোষণা দেওয়ার পর নতুন প্রধানমন্ত্রী নির্বাচনের প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে।

এখন প্রধানমন্ত্রী ও কনজারভেটিভ পার্টির প্রধান হওয়ার লড়াইয়ে টিকে আছেন পাঁচজন।

তারা হলেন ঋসি সুনাক, লিস ট্রাস, পেনি মরডান্ট, কেমি বাদেনোচ এবং টম টাগেনদাট।

কনজারভেটি পার্টির এ পাঁচ নেতা প্রচার-প্রচারণার অংশ হিসেবে একটি টিভি বিতর্কে অংশ নেন।

সেখানে তাদের জিজ্ঞেস করা হয়, তাদের মধ্যে কি কেউ আছেন যিনি প্রধানমন্ত্রী নির্বাচিত হওয়ার পর বিদায়ী প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসনকে কোনো দায়িত্ব দেবেন। যদি দেওয়ার ইচ্ছা থাকে তাহলে যেন হাত উঠিয়ে দেখান।

তবে উপস্থাপকের এমন আহ্ববানের পর বিতর্কে অংশ নেওয়া পাঁচজনের কেউ হাত তোলেননি। মানে তারা কেউই প্রধানমন্ত্রী নির্বাচিত হওয়ার পর বরিস জনসনকে কোনো দায়িত্ব দেবেন না।

এদিকে এ বিতর্কটিতে সাবেক চ্যান্সেলর ঋসি সুনাক এবং বর্তমান পররাষ্ট্রমন্ত্রী লিস ট্রাসের মধ্যে উত্তপ্ত বাক্য বিনিময় হয়। লিস ট্রাস দাবি করেন, সুনাক চ্যান্সেলর অবস্থায় কর বাড়িয়েছেন, যা যুক্তরাজ্যের অর্থনীতির প্রবৃদ্ধিকে আটকে দেবে।

তাছাড়া অন্য প্রার্থীরাও একে অপরের বিরুদ্ধে বিষেদাগার করেছেন। অথচ তারা সবাই একই দলের। কয়েকদিন আগেও একই মন্ত্রীসভায় পাশাপাশি বসে বিভিন্ন সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তারা।

সূত্র: বিবিসি