দক্ষিণ-পূর্ব লন্ডনে ২ বছর ধরে ফ্ল্যাট ভাড়া দিয়ে যাচ্ছেন মৃত নারী!

Published: 23 July 2022, 8:53 AM

পোস্ট ডেস্ক :

আড়াই বছর ধরে নিজের ফ্ল্যাটে মৃত অবস্থায় পড়েছিলেন এক মহিলা। এদিকে সেই ফ্ল্যাটের ভাড়া নিয়ে যেতেন ফ্ল্যাটমালিক। কেউ ঘুণাক্ষরেও বুঝতে পারেনি যে ভাড়াটে মহিলার মৃত্যু হয়েছে। কেউ তাঁর ফ্ল্যাটে ঢোকেওনি। টনক নড়ল আড়াই বছর পর। ব্রিটেনের বাসিন্দা শেইলা সেলেওয়ানের কঙ্কাল মিলেছে তার দক্ষিণ-পূর্ব লন্ডনের ফ্ল্যাট বাড়িতে। এই মহিলাকে শেষ বার দেখা গিয়েছিল ২০১৯ সালের আগস্ট মাসে। সে সময় এক চিকিৎসকের কাছে গিয়েছিলেন তিনি। তখনই তাঁকে শেষ বার দেখতে পেয়েছিলেন তাঁর প্রতিবেশীরা। এর পর থেকে শেইলাকে কখনও দেখেননি তাঁর প্রতিবেশীরা।

এভাবেই কেটে গেছে দু-দুটি বছর। অবশেষে প্রতিবেশীদের কাছ থেকে রিপোর্ট পাওয়ার পর পুলিশ কর্মকর্তারা এই বছরের শুরুতে দরজা ভেঙে ঘরে ঢুকে ওই মহিলার দেহাবশেষ উদ্ধার করেন ।

কারণ বেশ কয়েকদিন ধরেই ফ্ল্যাট থেকে কটু গন্ধ ভেসে আসছিলো। শেইলা-র লেটারবক্সেও জমা হচ্ছিল চিঠির পাহাড় যা দেখে সন্দেহ হয় প্রতিবেশীদের। তাঁরা বিষয়টি পুলিশকেও জানিয়েছিলেন। তাঁর ঘরে পুলিশ এসেওছিল বলে জানা গিয়েছে। কিন্তু তদন্তকারী অফিসারের গাফিলতি এবং কোনও ভুলের কারণে, কী অবস্থায় মহিলা রয়েছেন তা সামনে আসেনি। যদিও গ্যাস সরবরাহ সংস্থা বার বার এনকয়ারি করেছিল। কিন্তু কোনও প্রত্যুত্তর না পেয়ে গ্যাস সরবরাহ বন্ধ করে দেওয়া হয়।

পোস্ট ডেস্ক :
ফ্ল্যাটের লিভিং রুমের সোফায় বসা অবস্থায় পাওয়া যায় শেইলা সেলেওয়ানের কঙ্কাল। এই ঘটনায় ক্ষমা চেয়েছে হাউজিং সোসাইটি। অন্যদিকে কী কারণে শেইলার মৃত্যু হয়েছে, তা খতিয়ে দেখবেন তদন্তকারীরা। প্রসঙ্গত, ময়নাতদন্তে শেইলারের মৃত্যুর কারণ নিশ্চিত করে কিছু জানা যায়নি। কারণ, দেহ পচে কঙ্কাল হয়ে গিয়েছিল। তাই অন্য উপায়ে মৃত্যুর কারণ খতিয়ে দেখতে হবে। মৃতার দেহাবশেষ ছাড়া গোটা ফ্ল্যাটটি সাজানো অবস্থায় ছিল। তাই জোর করে কেউ ভেতরে ঢুকে শেইলাকে হত্যা করেছেন একথা মনে করছেন না তদন্তকারীরা।