অস্ট্রেলিয়ার নিউ সাউথ ওয়েলসে ভয়াবহ বন্যা

Published: 22 March 2021, 7:53 AM

পোস্ট ডেস্ক : অস্ট্রেলিয়ার পূর্ব উপকূলে ভারী বর্ষণে সৃষ্ট বন্যায় নিউ সাউথ ওয়েলস (এনএসডব্লিউ) রাজ্যের বিভিন্ন এলাকা থেকে প্রায় ১৮ হাজার লোককে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে।

কয়েকদিনের টানা ভারি বৃষ্টিতে এনএসডব্লিউর রাজধানী সিডনির আশপাশে ও কুইন্সল্যান্ডের দক্ষিণপূবাঞ্চলের নদী ও বাঁধগুলো উপচে পড়ছে। খবর বিবিসির।

সরকারি কর্মকর্তারা বলছেন, তারা বিগত ৫০ বছরেও এখানে এমন ভয়াবহ বন্যা দেখেননি।

কর্মকর্তারা জানান, এনএসডব্লিউর মধ্য উত্তর উপকূল থেকে ১৫ হাজার লোক এবং সিডনি থেকে আরও তিন হাজার জনকে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে।

যারা এলাকা ছেড়ে যেতে বাধ্য হয়েছেন, তাদের অর্থ সহায়তা দেওয়ার প্রস্তাব দিয়েছেন অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী স্কট মরিসন।

প্রধানমন্ত্রী স্কট মরিসন বলেন, বন্যায় যারা বাড়িঘর ত্যাগ করতে বাধ্য হয়েছেন, তাদের সাহায়্যের জন্য তহবিল গঠন করা হচ্ছে। এটি আমাদের দেশের জন্য আরেকটি পরীক্ষা।

অস্ট্রেলিয়ার আড়াই কোটি জনগোষ্ঠীর এক-তৃতীয়াংশের বসবাস যে এলাকাগুলোতে সেখানেই বন্যা দেখা দিয়েছে, এতে ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে।

এনএসডব্লিউর প্রিমিয়ার গ্ল্যাডিস বেরেজিক্লিয়ান জানিয়েছেন, যে এলাকাগুলো ‘বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে’ তার অনেক গত গ্রীষ্মে দাবানল ও খরার কবলে পড়েছিল।

তিনি আরও বলেন, রাজ্যের ইতিহাসে আর কখনও মহামারির মধ্যে পর পর এ রকম চরম আবহাওয়া পরিস্থিতি ছিল কিনা তা আমি জানি না।

জরুরি বিভাগগুলো অন্তত ৫০০ উদ্ধার তৎপরতা চালিয়েছে। এগুলোর মধ্যে গাড়িতে আটকেপড়া লোকজনও ছিল। বন্যাকবলিত একটি বাড়ি থেকে হেলিকপ্টারযোগে একটি পরিবারকেও উদ্ধার করা হয়েছে।

সিডনির পশ্চিমে বন্যায় ডুবে যাওয়া একটি বাড়ি থেকে একটি নবজাতকসহ এক পরিবারকে উদ্ধার করেছেন জরুরি বিভাগের কর্মীরা।

অস্ট্রেলিয়ার আবহাওয়া ব্যুরো সাম্প্রতিক দিনগুলোর বৃষ্টিপাতের পরিমাণকে ‘অস্বাভাবিক’ বলে বর্ণনা করেছে। কিছু কিছু এলাকায় সর্বোচ্চ এক হাজার মিলিমিটার পর্যন্ত বৃষ্টিপাত হয়েছে বলে জানিয়েছেন তারা।

সোমবার সিডনির উত্তর ও পশ্চিমের, এনএসডব্লিউর কেন্দ্রীয় উপকূল এবং হকসবারি উপত্যকার নিচু এলাকাগুলোর বাসিন্দাদের নিয়ে বেশি উদ্বিগ্ন ছিল কর্তৃপক্ষ।

উপচে পড়া নদীর পানিতে রাস্তা ও সেতু ডুবে গেছে। এ কারণে সোমবার বন্যাকবলিত এলাকাগুলোর প্রায় ১৫০টি স্কুল বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে।

বিভিন্ন এলাকায় বন্যার পানিতে খামারের গরু, ভেড়াকে ভাসতে দেখা গেছে। এসব এলাকার অনেক বাড়িতে পানি জানালা ছুঁই ছুঁই করছিল।