বুড়ো-বুড়ির বিয়ে

Published: 14 March 2021, 9:06 AM

পোস্ট ডেস্ক : ৬৪ বছর বয়সী বর বজলু খান। ৫৮ বছরের কনে বকুল বেগম ওরফে ফুলশুনী।

দুজনই আগে বিয়ে করেছিলেন। গড়েছিলেন পৃথক সুখের সংসার। কিন্তু ভাগ্যের নির্মম পরিহাসে জীবনের পড়ন্ত বেলায় হয়ে পড়েন নিঃসঙ্গ। খোঁজ নিতেন না নিজের সন্তানরা। তাদের অসহায়ত্ব দেখে স্থানীয় তরুণরা দুই বুড়ো-বুড়ির বিয়ের আয়োজন করেন। শনিবার (১৩ মার্চ) দুপুরে জাঁকজমকপূর্ণভাবে বরিশাল নগরীর দক্ষিণ আলেকান্দা খান সড়ক এলাকায় এ বিয়ে সম্পন্ন হয়।
বর বজলু খান কনের বাড়িতে আসেন ঘোড়ার গাড়িতে চড়ে। ৩০ হাজার টাকা দেনমোহরে সম্পন্ন হয় তাদের বিয়ে। তাদের বিয়ে দেখতে রাস্তার দুইপাশে উৎসুক মানুষের ভিড় তৈরি হয়। কেউ হাত তালি দিয়ে আবার কেউ ফুল ছিটিয়ে তাদের অভিবাদন জানান। চাঞ্চল্য সৃষ্টি হয় পুরো নগরীতে।
বজলু খান জেলার উজিরপুরের কালিহাতা গ্রামের বাসিন্দা। গত ৩০ বছর আগে সে তার প্রথম স্ত্রীকে তালাক দেন। ওই সংসারে ২ ছেলে এবং ১টি মেয়ে রয়েছে। বজলু খানের দাবি- সন্তানরা তার খোঁজখবর নেয় না। এ কারণে দ্বিতীয় বিয়ে করে বরিশাল নগরীর সাগরদী দরগাহ বাড়ি ভাড়া বাসায় বসবাস করে কাঠমিস্ত্রির কাজ করে জীবিকা নির্বাহ করেন তিনি। গত বছর নগরীর ১ নম্বর সিএন্ডবি পোল এলাকায় ট্রাক চাপায় দ্বিতীয় স্ত্রী মারা যাওয়ার পর নিঃসঙ্গ হয়ে পড়েন তিনি।

অপরদিকে নগরীর খান সড়ক এলাকার অস্থায়ী বাসিন্দা ফুলশুনীর স্বামী মারা যায় ১০ বছর আগে। একমাত্র ছেলে ঢাকায় থাকে। কিন্তু সে তার মায়ের খোঁজখবর নেয় না। জীবিকার তাগিদে নগরীর খান সড়ক এলাকায় মহাসড়কের পাশে বসে ডিম বিক্রি করেন তিনি।