আরও জোরালো সংঘর্ষের আশঙ্কা করছেন জেলেনস্কি

Published: 24 May 2022, 5:16 PM

পোস্ট ডেস্ক :


ইউক্রেনের উপর রাশিয়ার হামলার তিন মাস পর প্রেসিডেন্ট জেলেনস্কি আগামী কয়েক দিনে আরও জোরালো রুশ হামলার আশঙ্কা করছেন। ডনবাস অঞ্চলে বাড়তি সেনা পাঠিয়ে জমি দখলের চেষ্টা চালাচ্ছে মস্কো।ইউক্রেনের উপর রাশিয়ার হামলার চতুর্থ মাসে রাশিয়ার বাহিনী ডনবাস অঞ্চলে আরও জোরালো অভিযান শুরু করেছে। ইউক্রেনের পূর্বের এই অংশ থেকে দক্ষিণে ক্রাইমিয়া পর্যন্ত অধিকৃত এলাকার উপর স্থায়ী নিয়ন্ত্রণ কায়েম করতে রাশিয়া জোরালো উদ্যোগ নিচ্ছে।

ডনবাস অঞ্চলে লুগানস্কের গভর্নর সের্গি গাইদাই টেলিগ্রাম মেসেঞ্জার পরিষেবায় লিখেছেন, যে রাশিয়া আরও অনেক সৈন্য পাঠিয়ে গোটা অঞ্চল দখল করার চেষ্টা চালাচ্ছে। সব মিলিয়ে ১২ হাজার ৫০০ সৈন্য এই অভিযানে অংশ নিচ্ছে। বিশেষ করে সেভেরোদনেটস্ক শহরের উপর জোরালো হামলা চলছে। নিরীহ মানুষের পক্ষে আর পালিয়ে যাওয়া সম্ভব নয় বলে গাইদাই মনে করছেন। তিনি সেখানকার মানুষের উদ্দেশ্যে বরং নিরাপদ শেল্টারে আশ্রয় নেবার পরামর্শ দিয়েছেন।

ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি দেশবাসীর উদ্দেশ্যে ভাষণে বলেন, যুদ্ধের আগামী কয়েক সপ্তাহ বেশ কঠিন হতে চলেছে। সবাইকে সে বিষয়ে সচেতন হতে হবে। বিশেষ করে ডনবাস অঞ্চলের কঠিন পরিস্থিতির উল্লেখ করেন তিনি। জেলেনস্কি বলেন, সামরিক অভিযানের প্রথম তিন মাসে রাশিয়া ইউক্রেনের উপর প্রায় ১,৫০০ ক্ষেপণাস্ত্র হামলা ও প্রায় ৩ হাজার বিমান হামলা চালিয়েছে। ডাভোসে বিশ্ব অর্থনীতি ফোরামে এক অনুষ্ঠানে তিনি ভিডিও লিংকের মাধ্যমে রাশিয়ার সঙ্গে বন্দি বিনিময়ের উপর জোর দেন।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন বলেছেন, ইউক্রেন সংকট মোটেই শুধু ইউরোপের সমস্যা নয়, গোটা বিশ্বের জন্যই গুরুত্বপূর্ণ এক বিষয়। এর ফলে আন্তর্জাতিক নিয়মভিত্তিক কাঠামো ও ভৌগোলিক ঐক্য ও অখণ্ডতা বজায় রাখার গুরুত্ব আরও বেড়ে গেছে। জাপানের রাজধানী টোকিওয় গোষ্ঠীর শীর্ষ বৈঠকে বাইডেন আরও বলেন, বিশ্বের যে প্রান্তেই আন্তর্জাতিক আইন ও মানবাধিকার লঙ্ঘন করা হোক না কেন, তার বিরুদ্ধে সোচ্চার হতে হবে।

এদিকে ডেনমার্কের মাধ্যমে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ইউক্রেনে হারপুন নামের জাহাজ-বিধ্বংসী উন্নত ক্ষেপণাস্ত্র পাঠানোর অঙ্গীকার করেছে। সেই ক্ষেপণাস্ত্র সফলভাবে প্রয়োগ করা সম্ভব হলে কৃষ্ণ সাগরে রুশ নৌবাহিনীকে কোণঠাসা করা যাবে বলে আশা করা হচ্ছে। সে ক্ষেত্রে ইউক্রেনের বন্দর থেকে শস্য রপ্তানি আবার শুরু হলে বিশ্বব্যাপী খাদ্য সংকট কিছুটা কমবে। আন্তর্জাতিক মঞ্চে কিছুটা কোণঠাসা রাশিয়া বিচ্ছিন্নতা এড়াতে চীনের সঙ্গে আরো নিবিড় সম্পর্কের উদ্যোগ নিচ্ছে।

রাশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই লাভরভ পশ্চিমা বিশ্বের বিরুদ্ধে কড়া সমালোচনা করে বলেন, ভবিষ্যতে তারা আবার সম্পর্ক চালু করার প্রস্তাব দিলে রাশিয়াকে তার প্রয়োজনীয়তার বিষয়ে ভালো করে ভেবে দেখতে হবে। পশ্চিমা বিশ্ব এর মতো অবস্থান নেওয়ায় চীনের সঙ্গে রাশিয়ার অর্থনৈতিক সম্পর্ক আরো দ্রুত গতিতে সম্প্রসারণ করতে হবে, বলেন লাভরভ।