শ্রীলঙ্কায় বিক্ষোভ শিবিরে সেনা অভিযান

Published: 22 July 2022, 7:26 AM

পোস্ট ডেস্ক :


শ্রীলঙ্কার রাজধানী কলম্বোতে সরকার বিরোধী বিক্ষোভ শিবিরে অভিযান চালিয়েছে দেশটির সেনাবাহিনী। শত শত সেনা এবং পুলিশ কমান্ডো প্রেসিডেন্টের কার্যালয়ের বাইরে অবস্থানকারী বিক্ষোভকারীদের উপর অভিযান চালায়। এসময় বিক্ষোভকারীদের তাঁবু ভেঙ্গে দেয়া হয়। স্থানীয় সময় শুক্রবার সকালে এই অভিযান চালানো হয়। এ খবর দিয়েছে বিবিসি বাংলা।

বিবিসি বাংলার খবরে বলা হয়, বিবিসির একজন ভিডিও সাংবাদিককে সেনাবাহিনী মারধর করেছে এবং একজন সেনা তার ফোন ছিনিয়ে নিয়ে ভিডিও ডিলিট করেছে। রনিল বিক্রমাসিংহে প্রেসিডেন্ট হিসেবে শপথ নেয়ার পর এই ঘটনা ঘটে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, সেনারা গত এপ্রিল থেকে হাজার হাজার সরকারবিরোধী বিক্ষোভকারীর রসদ সরবরাহের জন্য এলাকায় স্থাপিত বেশ কয়েকটি অস্থায়ী কাঠামো অপসারণ করেছে। ঘটনাস্থল থেকে আটক করা হয়েছে শতাধিক বিক্ষোভকারীকে।

শ্রীলঙ্কার সাবেক প্রেসিডেন্ট গোটাবাইয়া রাজাপাকসে গত সপ্তাহে দেশ ছেড়ে পালিয়েছেন। বিক্রমাসিংহে দেশটির সাবেক প্রধানমন্ত্রী ছিলেন এবং জনগণের কাছে তিনি অত্যন্ত অজনপ্রিয়। তিনি বিক্ষোভকারীদের বিরুদ্ধে কঠোর পদক্ষেপের প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন। তবে কিছু বিক্ষোভকারী বলেছেন যে, তারা তাকে একটি সুযোগ দেবেন।

অর্থনৈতিক সংকটের জের ধরে শ্রীলঙ্কায় গত কয়েক মাস ধরে ব্যাপক অস্থিরতা চলছে।
অনেকে রাজাপাকসে প্রশাসনকে দেশের অর্থব্যবস্থার অব্যবস্থাপনার জন্য দায়ী করেন এবং বিক্রমাসিংহেকে সমস্যার অংশ হিসেবেই মনে করেন। কিন্তু পার্লামেন্ট ভোটে জয়লাভের পরদিন রাস্তায় কম বিক্ষোভ দেখা গেছে। বক্রমাসিংহে শপথ নেওয়ার পরপরই, তিনি স্পষ্ট করে বলেন যে, সরকার পতন বা সরকারি ভবন দখলে নেয়ার যে কোনো প্রচেষ্টা গণতন্ত্র নয় এবং তিনি সতর্ক করে বলেন যে, যারা এই ধরনের কার্যকলাপে লিপ্ত হবে তাদের আইন অনুযায়ী দৃঢ়ভাবে মোকাবেলা করা হবে। বিক্ষোভকারীদের অনেকের মধ্যে উদ্বেগ রয়েছে যে, ধীরে ধীরে সরকার প্রতিবাদ আন্দোলনকে দমন করতে শুরু করবে।