একনেকে ১৩ হাজার ৬৫৫ কোটি টাকার ১১ প্রকল্প অনুমোদন

Published: 11 April 2023

পোস্ট ডেস্ক :


পরিবেশ উন্নয়নসহ ১১ প্রকল্প অনুমোদন দিয়েছে জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক)। এগুলো বাস্তবায়নে মোট ব্যয় ধরা হয়েছে ১৩ হাজার ৬৫৫ কোটি ৯৮ লাখ টাকা।

এরমধ্যে সরকারি তহবিল থেকে৩ হাজার ১২৯ কোটি ৮৭ লাখ টাকা এবং বৈদেশিক সহায়তা থেকে ১০ হাজার ৫২৬ কোটি ১১ লাখ টাকা ব্যয় করা হবে।

মঙ্গলবার রাজধানীর শেরেবাংলা নগরের এনইসি সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন প্রধানমন্ত্রী ও একনেক চেয়ারপার্সন শেখ হাসিনা। বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের ব্রিফ করেন পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান ও পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী ড. শামসুল আলম।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন, পরিকল্পনা সচিব সত্যজিত কর্মকার, আইএমইডির সচিব আবুল কাশেম মো. মহিউদ্দিন, ভৌত অবকাঠামো বিভাগের সদস্য এমদাদউল্লাহ মিয়ান এবং পরিসংখ্যান ও তথ্য ব্যবস্থাপনা বিভাগের সচিব ড.শাহনাজ আরেফিন প্রমূখ।

পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান বলেন, মহিলাদের কাজের অবদান নির্ণয়য়ের জন্য বিআইডিএসকে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। আগামী অর্থবছরের বাজেটে হবে না। কিন্তু তারপরের বাজেট থেকে মহিলাদের অবদান হিসাব করে জিডিপি প্রবৃদ্ধির হিসাব ধরা হবে।

একনেকে অনুমোদিত প্রকল্পগুলো হচ্ছে, এক্সপোর্ট কম্পিটিটিবনেস ফর জবস প্রর্কপ। সার সংরক্ষণ ও বিতরণ সুবিধার্থে দেশের বিভিন্ন জায়গায় ৩৪টি বাফার গুদাম নির্মাণ প্রকল্প। বাংলাদেশ এনভায়রনমেন্টাল সাসটেইনেবিলিটি এন্ড ট্রান্সফরমেশন প্রকল্প। বন্যা ব্যবস্থাপনা পুণর্গঠন জরুরী সহায়তা প্রকল্প। এডিবির জরুরী সহায়তায় বন্যা ২০২২এ ক্ষতিগ্রস্ত গ্রামীণ অবকাঠামো পুনর্বাসন প্রকল্প। সিলেট-চারখাই-শেওলা মহাসড়ক উন্নয়ন প্রকল্প।

২০২২ সালের বন্যায় মরাত্বকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত বাংলাদেশ রেলওয়ের সিলেট-ছাতক বাজার সেকশন (মিটারগেজ) পুনর্বাসন প্রকল্প। বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত পানি সরবরাহ ও স্যানিটেশন ব্যব্স্থার পুণনির্মাণে জরুরি সহায়তা প্রকল্প।

পাকিস্তানের ইসলামাবাদে বাংলাদেশ চ্যান্সরি কমপ্লেক্স নির্মাণ প্রকল্প। বাংলাদেশ ভূমি জরিপ শিক্ষার উন্নয়ন প্রকল্প। একসেলেরেটিং ট্রান্সপোর্ট এন্ড ট্রেড কানেক্টিভিটি ইন ইস্টার্ন সাউথ এশিয়া (একসেস) বাংলাদেশ ফেজ-১ প্রকল্প।

প্রকল্পে পরামর্শকের আধিক্য কমানোর নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর

প্রকল্পে বেশি পরামর্শক না নেওয়ার অনুশাসন দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। অনুমোদন দেওয়া বেস্ট প্রকল্পে একজনের বেশী না নেওয়ার দিয়েছেন।

এছাড়া শিশু পরিবারের শিশুদের কারিগরি শিক্ষার ফাস্টট্র্যাক হিসাবে সুযোগ দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। সেই সঙ্গে বর্তমান রেমিট্যান্স বেড়ে যাওয়ার উল্লাসিত না হয়ে সতর্ক হওয়ার নির্দেশও দিয়েছেন তিনি। কেননা ঈদের কারণে রেমিট্যান্স বাড়লেও ঈদে কমে যেতে পারে। তবে আবার কোরবানী ঈদে বাড়বে।

মঙ্গলবার জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) বৈঠকে এসব নির্দেশ দেন তিনি।

সমুদ্রের নীল অর্থনীতি কাব্যে লাগানোর নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। অপর একটি প্রকল্প বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন এখন থেকে আর সুইস গেট বানানো যাবে না। তবে যেখানে বন্যার কারণে রাস্তাঘাট ভেঙ্গে গেছে সেখানে যেন কালভার্ট করা হয়। পানির চাপ যেন বাধাগ্রস্থ না হয়।