আমেরিকা নির্বাচন.............
পাল্টাপাল্টি আক্রমণে মাইক পেন্স-কমালা হ্যারিস

Published: 8 October 2020, 9:39 AM

পোস্ট ডেস্ক : আক্রমণ-পাল্টা আক্রমণের মধ্য দিয়ে শেষ হয়েছে যুক্তরাষ্ট্রে ভাইস প্রেসিডেন্ট পদে প্রার্থী রিপাবলিকান ভাইস প্রেসিডেন্ট মাইক পেন্স ও ডেমোক্রেট দল থেকে মনোনয়ন পাওয়া কমালা হ্যারিসের বিতর্ক। এই দু’প্রার্থীর এটাই শেষ মুখোমুখি বিতর্ক। বুধবার দিনশেষে সল্ট লেক সিটিতে ইউনিভার্সিটি অব ইউটাহ’তে বিতর্কে যুক্তরাষ্ট্রের ইতিহাসে বর্তমান প্রেসিডেন্সিয়াল প্রশাসনকে সবচেয়ে ব্যর্থ বলে আখ্যায়িত করেন কমালা হ্যারিস। জবাবে নিজেদের সফলতা তুলে ধরেন মাইক পেন্স। তিনি করোনা ভাইরাস মহামারির জন্য চীনকে দায়ী করেন। এই ভাইরাসের বিরুদ্ধে বর্তমান মার্কিন প্রশাসনের উদ্যোগের পক্ষে সাফাই গান। উল্লেখ করেন, চীন থেকে এই মহামারির সূচনা হওয়ার পর গত জানুয়ারিতে ভ্রমণে বিধিনিষেধ দেন প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্প। বিতর্কে বেশ কিছু প্রশ্নের উত্তর এড়িয়ে গিয়েছেন দুই প্রার্থীই।

এ খবর দিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স। এতে বলা হয়, বিতর্কের শুরুতেই বিরোধে জড়িয়ে পড়েন মাইক পেন্স ও কমালা হ্যারিস। বিশেষ করে তাদের বিরোধ বড় হয়ে দেখা দেয় করোনা ভাইরাস মহামারি প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প কিভাবে মোকাবিলা করেছেন তা নিয়ে। এর আগে গত সপ্তাহে প্রেসিডেন্ট পদে প্রার্থী ডনাল্ড ট্রাম্প ও ডেমোক্রেট জো বাইডেনের মধ্যে প্রেসিডেন্সিয়াল বিতর্ক হয়। তাতে জো বাইডেনের কথার মধ্যে বার বার অব্যাহতভাবে হস্তক্ষেপ করেন ট্রাম্প। এ জন্য তাকে বেশ সমালোচনা শুনতে হচ্ছে। অন্যদিকে তারা দু’জনেই একে অন্যকে ব্যক্তিগতভাবে আক্রমণ করে অবমাননা করেন। এই বিতর্কের পর করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের উপদেষ্টা হোপ হিকস। তারপরই গত শুক্রবার ট্রাম্পের করোনা পজেটিভের ঘোষণা দেয়া হয়। ফলে এবার ভাইস প্রেসিডেন্সিয়াল বিতর্কের সময় নীতিতে কিছুটা পরিবর্তন আনা হয়। কাচ দিয়ে তাদেরকে আলাদা করে দেয়া হয়। একজন থেকে আরেকজন ছিলেন ১২ ফুট দূরত্বে। সেখানে বিতর্কে প্রচলিত আক্রমণের রীতি অনুযায়ী, ট্রাম্পের স্বাস্থ্যসেবা, অর্থনীতি, জলবায়ু পরিবর্তন ও পররাষ্ট্র নীতি নিয়ে প্রশ্নবাণে জর্জরিত করেন কমালা হ্যারিস। জবাবে মাইক পেন্স গত চার বছরে রিপাবলিকান প্রশাসনের পক্ষে বক্তব্য উপস্থাপন করেন। এক পর্যায়ে কমালা হ্যারিস বলেন, মার্কিন জনগণ প্রত্যক্ষ করেছে যে, আমাদের ইতিহাসে যেকোনো প্রেসিডেন্সিয়াল প্রশাসনের মধ্যে এই প্রশাসন সবচেয়ে ব্যর্থ। জবাবে মাইক পেন্স বলেন, আমি মার্কিনিদের জানাতে চাই একেবারে প্রথম দিন থেকে। প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্প মার্কিনিদের স্বাস্থ্য সর্বাগ্রে- এমন নীতি নিয়েছেন। করোনা ভাইরাসের জন্য দায়ী চীন। এ নিয়ে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প সন্তুষ্ট নন।