এবার সাংবাদিক হাসানুল হক উজ্জ্বলের লেখা ধর্ষণ গানটি ভাইরাল

Published: 12 October 2020, 5:19 PM

সিলেট অফিস : সিলেটের বিশিষ্ট লেখক ও সাংবাদিক এম.হাসানুল হক উজ্জ্বল এবার সঙ্গীত জগতে পদার্পণ করলেন। তার লিখা ধর্ষক গানটি এখন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হচ্ছে। এ নিয়ে অনেকে সময়োপযোগী লেখনির জন্য গানটির রচয়িতা এম.হাসানুল হক উজ্জ্বল ও সংগীত শিল্পি মুরসালিনকে সাধুবাদ জানিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পোস্ট করছেন।

প্রতিভাবান সংগিত শিল্পি মুরসালিন সুদুর গ্রীস থেকে গানটির সুর ও মিউজিক ভিডিও করে শনিবার তার ইউটিউভ পেইজ ‘মুরসালিন’এ  আপলোড করেন। মুহুর্তের মধ্যে গানটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়ে যায়। এ নিয়ে জামিল খান লিখেছেন ‘ ভাইয়া অনেক সুন্দর লাগছে। প্রতিবাদী কন্ঠস্বর। ভালো লাগলো। শেখ মুজাহিদ মিয়া লিখেছেন, ‘খুব ভালো লাগলো ভাই, ধর্ষণের প্রতিবাদ হোক প্রতিটি পথে, ঘাটে,অফিসে, গানে গানে, কথা-ভাষায়’। কাজী আইয়ুব লিখেছেন, ‘ ভাই তোমার গানের কথা কি বলবো সে তো অসাধারন, সময় উপযোগী গানের কথা গুলি। মারজানা রেশমা লিখেছেন-ভালো হয়েছে তবে ধর্ষক নামে কুকুর বাচ্চাগুলোতো বোঝেনা। এরকম অসংখ্য ভক্তশ্রোতা কমেন্টস করে গীতিকার ও শিল্পিকে উৎসাহ দিয়েছেন।

সাংবাদিক ও গানটির রচয়িতা এম.হাসানুল হক উজ্জ্বল বলেন, আধ্যাতিক রাজধানী হিসেবে পরিচিত সিলেট। এখানে দেশ বিদেশ থেকে মানুষজন শান্তির নিঃশ্বাস নিতে আসেন। আর এম সি কলেজ এমন একটি বিদ্যাপিঠ যেখান থেকে অগণিত গুনীজন বের হয়ে গেছেন এবং তারই ধারাবাহিকতা চলমান। এমন স্থানে কতিপয় নরপশু তাদের রাম রাজত্ব কায়েমের মাধ্যমে কলংকিত করতে পারেনা।

তিনি বলেন, এম সি কলেজে গণ ধর্ষণের পর সিলেটবাসীর সাথে তাঁরও হৃদয়ে রক্তক্ষরণ হয়েছে। আর এই থেকেই গানটি তিনি লিখেছেন।

এ প্রসঙ্গে তার অনুভূতি জানতে চাইলে বলেন, ভালো কিছু দিতে পারলে যে কেউ লুফে নিতে পিছপা হয় না। এরকমই গানটি লিখার পর জনপ্রিয় ও প্রতিভাবান শিল্পি মুরছালিন সুদুর গ্রিস থেকেও গানটি লুফে নিয়েছেন। আজ গানটি সকলের মুখে মুখে চলে আসায় অনেক ভালো লাগছে।

এ প্রসঙ্গে সংগিত শিল্পি মুরসালিন জানান, গানের কথাগুলো হাতে পাওয়ার পর আমার কাছে অনেক ভালো লেগেছে। একটি শক্ত প্রতিবাদের হাতিয়ার যাতে গানটি হয় সে লক্ষ্য নিয়ে আমি কাজ শুরু করি। আমার ইউটিউব চ্যানেলে আপলোড করার পর অল্প সময়ের মধ্যে গানটি ভাইরাল হওয়ায় নিজের কাছে অনেক ভালো লাগছে।

সংগিত পরিচালক ও এম এ এইচ টিভির কর্ণধার লন্ডনের বিশিষ্ট আইনজীবি আব্দুল হামিদ টিপু জানান, এ রকম গান সমাজকে বদলে দিতে পারে। সেই কথা বিবেচনায় নিয়েই তা মিউজিক ভিডিও আকারে সমাজে ছড়িয়ে দেওয়ার উদ্যোগ নেই। সফলতার বিচার দর্শক করছেন।
গানটি দেখার জন্য লগইন করুণ : https://www.youtube.com/watch?v=Nq58kyiabxE&feature=youtu.be&fbclid=IwAR1B1D-Hg5iPHPVTYt-GVZCXkf4kodFJUUr3WLU8N3CbI7SEJPlYalu3yAo