কমিউনিটি ব্যক্তিত্ব আলহাজ আব্দুল আহাদ আর নেই

Published: 28 October 2020, 4:18 AM

স্টাফ রিপোর্টার : বিলেতে বাংলাদেশী কমিউনিটির আলোকিত ব্যক্তিত্ব,  দানবীর আলহাজ আব্দুল আহাদ আমাদের ছেড়ে চলে গেছেন মহান মাবুদের দরবারে।

২৭ অক্টোবৱ মঙ্গলবার বিকেল সোয়া ৫টায় বৃটেনের ড্রাটফুর্ড ডেন্টভেলী হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি ইন্তেকাল কৱেছেন। ইন্না-লিল্লা-হি ওয়া ইন্না-ইলাইহি রা-জিউ‘ন। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৮৩ বছর। তিনি স্ত্রী, ৩ ছেলে, ২ মেয়ে, নাতি-নাতনি সহ অসংখ্য স্বজন ও গুণগ্রাহী রেখে গেছেন।

ন্যাশনাল হার্ট ফাউন্ডেশন সিলেটের কার্যকরী কমিটির সদস্য ও ফ্রেন্ডস অব ন্যাশনাল হার্ট ফাউন্ডেশন ইউকে কমিটির চেয়ারম্যান, জগন্নাথপুর ব্রিটিশ বাংলা এডুকেশন ট্রাস্টের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান, সাপ্তাহিক নতুন দিনের সিনিয়র সহ সভাপতি আলহাজ আব্দুল আহাদ ছিলেন একজন প্রকৃত জনদরদী, আপাদমস্তক ভদ্র ও মধুর স্বভাবের মানুষ। আমাদের কমিউনিটিতে তার মতো বিনয়ী ও বন্ধুসুলভ অবিভাবকের জায়গা সহজে পুরণ হবার নয়। তিনি ছিলেন সকলের কাছের স্বজন ও গ্রহনযোগ্য এক অনন্য মানুষ।

সিলেট বিভাগের সুনামগঞ্জ জেলার জগন্নাথপুর কাঠল খাই নিবাসী আলহাজ আব্দুল আহাদ ছিলেন তার এলাকার মানুষের সৌভাগ্যের বরপুত্র। নিরবে নিভৃতে তাদের সুখ দুঃখের অংশীদার। এম এ আহাদ এতিম খানা নামে একটি অসাধারণ সেবা প্রতিষ্ঠান গড়ে তুলেছেন তিনি। সিলেটের পাঠনটোলায় প্রতিষ্ঠিত এই এতিম খানায় শিশুদেরে আপন পরিবারের সন্তানদের মত লালন পালন করতেন। অসহায় মানুষের মুখে হাসি ফোটানোর জন্য আজীবন তিনি নিরন্তর চেষ্টা করেছেন। নিজের সন্তানদের আদর্শ মানুষ হিসেবে গড়ে তোলার পাশাপাশি অসংখ্য গরীব মানুষের সন্তানদের নৈতিক ও মানবিক মূল্যেবোধে জাগ্রত করেছেন। তাদের শিক্ষা ও প্রশিক্ষণের খরচ বহন করেছেন উদারভাবে, দারাজ হস্তে।

সিলেট নগরির পাঠানটোলায় তার ঐতিহ্যবাহী আহাদ ভিলা ছিল বিভিন্ন স্থান থেকে সিলেটে আগত দেশী ও প্রবাসীদের মিলন কেন্দ্র। একই ভাবে কেন্টের ব্রেক্সলিহিতে তার মহারাজ রেষ্টুরেন্ট বিলেতে কমিউনটি নেতাদের প্রিয় পছন্দের জায়গা।

 

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •