আসছে ক্ষুদ্র বিনিয়োগকারীর এ্যাপ ‘চুম্বক’

Published: 13 December 2020, 6:50 AM

পোস্ট ডেস্ক :  বাংলাদেশে কর্পোরেট জগতের জন্য নানান প্রকারের সুযোগ-সুবিধা রয়েছে কিন্তু ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীদের জন্য তেমন সুবিধা লক্ষ্য করা যায় না।

তাদের বিনিয়োগের সীমাবদ্ধতার জন্য তাদের পুজিবাজারে নিজেদের ব্যবসা প্রসারের ক্ষেত্রে অনেক ঝক্কিঝামেলা পোহাতে হয়।ডিজিটাল যুগে এমন ঝক্কিঝামেলা থেকে মুক্তি দিতে বাজারে আসছে নতুন একটি এ্যাপ ‘চুম্বক’। এই চুম্বক বা ম্যাগনেট এ্যাপটি তৈরী করা হয়েছে কেবলমাত্র ক্ষুদ্র বিনিয়োগকারী ব্যবাসয়ীদের সীমাবদ্ধতার প্রতি লক্ষ্য রেখে। তাদের প্রতি গুরুত্ব রেখেই এর বিভিন্ন অনুষঙ্গ সাজানো বা কৌশলগত দিক নির্ণয় করা হয়েছে।

চুম্বক আপনাকে কোন ধরণের সুযোগ-সুবিধা দিতে পারে?
আপনার বাজেটের সীমাবদ্ধতা অনেক গুরুত্বপূর্ণ একটি দিক যেটি কর্পোরেট জগতে প্রতিযোগিতা সামাল দিতে হিমশিম খেতে হয়। এই ‘চুম্বক এ্যাপ’ একজন ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীকে সেই সমস্যা থেকে সহজে মুক্তি দিতে পারে। এমন অবস্থায় দুশ্চিন্তার কারণগুলো জানা থাকলেও তার নিরসন করতে এগিয়ে আসছে না। অথচ এটি একটি অতিব জরুরী বিষয়। আপনি ব্যবসা করবেন কিন্তু সে ব্যবসা যদি সঠিক জায়গায় পৌঁছাতে না পারেন তাহলে কীভাবে আপনার স্বল্প বিনিয়োগকৃত অর্থ থেকে লাভবান হবেন? চুম্বকের ফ্যাসিটিলিজির মধ্যে তা ব্যাপকভাবে ধারণ করা হয়েছে যা একজন ক্ষুদ্র বিনিয়োগকারী ব্যবসায়ীকে মুক্তির পথ দেখাতে পারে। সেই সুযোগ-সুবিধা বা ফ্যাসিলিটিজগুলো কি? হ্যা এটিকে সহজভাবে ব্যাখ্যা করতে পারলে একজন সাধারণ মানুষের পক্ষে তা বুঝতে সহজলভ্য হয়।

সম্পূর্ণ ফ্রি এই চুম্বক এ্যাপ:
ব্যবাহারের ক্ষেত্রে পাবেন অনেক সহজ-সরল পদ্ধতি। জটিলতা মুক্ত। সহজে যে কেউ চাইলে প্রডাক্টিং লিস্ট করতে সক্ষম। ৮/১০টি ইমেজ তিনি অতি সহজে তুলে ধরতে পারবেন। মোবাইল থেকে ছবি তুলে তা এক ক্লিকে পোষ্ট করা সম্ভব। আবার ফেইসবুক একাউণ্ট দ্বারা সরাসরি গ্রাহকের সঙ্গে যোগাযোগ স্থাপন করতে পারেন অথবা চ্যাটিংও করতে পারেন। এর মাধ্যমে ক্রেতা ও বিক্রেতার সম্বন্ধ অনেক আস্থাশীল ও বিশ্বাসযোগ্য হয়ে ওঠে। আপনি কার সঙ্গে ব্যবসা করছেন কিংবা একজন ক্রেতা কার মাধ্যমে পণ্য সংগ্রহ করছেন সেটা ব্যক্তিগত সম্পর্কের মতো আপন করে তুলে। সবার জানা আছে, যে কোনো ব্যবসা-বানিজ্যকে বিশ্বাসভাজন করে তোলা অনেক গুরুত্বপূর্ণ একটি দিক। কর্পোরেট জগতের নানান প্রকারের বিজ্ঞাপন বা প্রজ্ঞাপনের মাধ্যমে তাদেরকে প্রকৃত ও মৌলিক ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বলে বিশ্বাস করি। কিন্তু কোনো ঝামেলায় পড়লে সেই কর্পোরেট ব্যবসায়ী ব্যক্তি গ্রহাককে কতোটুকু সুযোগ-সুবিধা দিয়ে থাকে তা এক মাত্র ভুক্তভোগীরাই বলতে পারবেন। কিন্তু এই চুম্বকের মাধ্যমে আপনার ক্ষুদ্র ব্যবসার যে ইমেজ বা বিশ্বস্থতা তৈরী করবে তা হবে একান্ত নিজস্ব ও নিকটাত্মীয়ের মতো। কারণ, চুম্বকের মাধ্যমে আপনি আপনার প্রডাকশন সরাসরি গ্রাহকের সঙ্গে সম্পর্ক স্থাপন করতে পারছেন। গ্রাহকও আপনাকে ব্যক্তিগতভাবে জানার সুযোগ পাচ্ছেন। এটি আন্তঃব্যবসায়ী সম্পর্ককে অনেক শক্তিশালী করে।

ক্রেডিট কার্ড:
অন্যদিকে, যারা ক্রেডিট কার্ড ব্যবহার করবেন তাদের জন্য কিছু সংক্ষেপে বিষয়টি ব্যাখ্যা করা দরকার। কারণ, যারা ক্রেডিট কার্ড ব্যবহার করেন তারা ভালোভাবে জানেন এটি কর্পোরেট জগতে ব্যবসার জন্য সুযোগ-সবিধাজনক একটি কার্ড। এটাও সকলের জানা যে, এই ক্রেডিট কার্ড কোনো কিছু ফ্রি সরবরাহ করে না। একটি সুনিরদিষ্ট এই কার্ড আপনাকে সার্ভিস বা সেবা দিয়ে থাকে। বাংলাদেশের ক্ষুদ্র ব্যবাসয়ীদের দিকে নজর রেখে বাংলাদেশের বায়ারদের জন্য যুক্তরাজ্যের উচ্চমানের প্রটেকশন সিস্টেমের মাধ্যমে সেবা দিতে উদ্যোগী একিটি এ্যাপ চুম্বক। আরো স্পষ্ট করে বলতে গেলে বলতে হয়, যুক্তরাজ্যের মতো বায়ার প্রটেকশনের সুযোগ রাখা হয়েছে। এর প্রস্তুকারক সুমন চৌধুরী বলছেন, ‘আমরা ১৪ দিন পর্যন্ত পণ্যের মূল্য (টাকা) হোল্ড করে রাখবো – যতক্ষণ না উভয় পক্ষ অর্থাৎ গ্রাহক ও বিক্রেতার মধ্যে ১০০% সন্তুষ্টি না এসেছে। পরিপূর্ণ সন্তুষ্টির পরই টাকা ট্রান্সফার হবে।’ তিনি আরো বলেন, ‘এই ১৪ দিন একটি বিশ্বাসযোগ্য পয়েণ্ট যা যে কোনো ব্যবসায়ী বুঝতে সক্ষম বলে আমরা মনে করি। হ্যা, এর জন্য একটি এডিশন্যাল বা প্রাথমিক ফি নির্ধারণ করা হয়েছে। কারণ, ক্রেডিট কার্ড (কর্পোরেট ব্যবাসয়ীদেরই একটি অংশ বলে গণ্য হয়) তাদেরকে আমরা একটি নির্ধারিত ফি দিতে হবে বলে আমরা চাইলেই এই কাজটি ফ্রি করতে পারবো না। এটি কর্পোরেট মার্কেটের একটি বাধ্যতামূলক বিষয় থাকার কারণে আমরাও আমাদের এ্যাপ চুম্বক ব্যবহারকারীদেরকে এটি ফ্রি হিসেবে সেবাদান করতে পারছি না।‘

উল্লেখ্য, এখানে বায়ারের স্বার্থ সঠিকভাবে সংরক্ষিত হবে। তাদের জন্য রয়েছে যথেষ্ট সুযোগ-সুবিধা। যেমন- তারা মোবাইলের জিপিও লকেশন ব্যবহারের মাধ্যমে স্থানীয়ভাবে বিজ্ঞাপনগুলো দেখতে পারবেন। তারা সহজভাবে রেইটিং করতে পারবেন। একইভাবে সেবা সম্পর্কিত নিজস্ব অভিজ্ঞতা তুলে ধরতে পারবেন। আবার এসব অন্যরাও দেখতে পারবেন। অর্থাৎ কোনো কিছুর মধ্যে লুকোচুরির সুযোগ নেই। এভাবে মার্কেট যাচাই করা সহজ একটি পদ্ধতিও বিবেচিত হতে পারে বলে সুমন তার বক্তব্যে তুলে ধরেন।

চুম্বক প্রভাইডকারীদের অভিজ্ঞতা:
তারা বলেন, যুক্তরাজ্যের বিভিন্ন প্রান্তের সঙ্গে আমাদের যাতায়াত রয়েছে। দুই দশক অর্থাৎ বিশ বছরের অভিজ্ঞতার আলোকেই আমরা এই চুম্বক এ্যাপটি তৈরী করেছি। আমরা কোনোভাবেই বিষয়টিকে কেবল বাণিজ্যিকভাবে বিবেচনা করিনি। আমরা শর্টকার্ট পথও বেছে নেইনি। কারণ, শর্টকার্ট পথ বেছে নিলে আমরা এই সুবিধাগুলো ক্ষুদ্রব্যবসায়ীদের জন্য বিবেচনা করতাম না। সেটা হয়ে ওঠতো উচ্চ পুজিবিনোগকারীদের জন্য একটি প্ল্যাটফর্ম বা বানিজ্যিক ক্ষেত্র যা আমাদের উদ্দেশ্য বা লক্ষ্য নয়। আমরা শুরু থেকেই উল্লেখ করেছি, ক্ষুদ্র বিনেয়াগকারী ব্যবসায়ীদের জন্য একটি সেবামূলক এ্যাপ – যার নাম চুম্বক। চুম্বকের আকর্ষণশক্তি ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীদের উপকারে আসুক আমরা সেটাই মনেপ্রাণে চাচ্ছি। মানুষের চাহিদা মেটাতে ও সেবাকর্মে ব্রত হয়ে নিজ দেশের ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীদের জন্য এ সুযোগ তৈরী করা হয়েছে। অনেক এ্যাপ এসেছে বাজারে কিন্তু ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীদের দিকে প্রকৃত নজর রেখে কেউ এসব এ্যাপ তৈরী করেননি। কর্পোরেট জগৎ উচ্চবিত্তদের প্রতি যতোটা না আন্তরিক ততোটা এই ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীদের প্রতি উদাসীন। ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীদের সীমাবদ্ধতাকে তারা সুনজের দেখেননি। কারণ, কোনো সীমাবদ্ধতা কর্পোরেট জগত উৎসাহিত করে না। মানুষের সীমাবদ্ধাতাকে তারা অক্ষমতা হিসেবে দেখে। আমরা এসব বিবেচনা করেছি অধীক হারে এবং আমাদের সেসব অভিজ্ঞতাকে কাজে লাগিয়ে এই এ্যাপ তৈরী করেছি।

১৬ ডিসেম্বর ২০২১-এ উদ্বোধন:
বাংলাদেশে বিজয়ের মাস ডিসেম্বর। এই দিন একটি নতুন দেশের পরিচয় নিয়ে এসেছিল ৯ মাস এক রক্তক্ষয়ী যুদ্ধের মাধ্যমে। যার নাম বাংলাদেশ। অগণিত মা-বোনের সম্ভ্রমহানী ও অগণিত মানুষের মৃত্যুর বিনিময়ে একটি স্বাধীন দেশের নাগরিক হয়ে ওঠে বাঙালি জনগোষ্ঠী। তাই এই বিজয়ের মাসকেই বেছে নেয়া হয়েছে ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীদের সুবিধাজনক এ্যাপটি উদ্বোধন করার জন্য।
উল্লেখ্য, চুম্বকের ১ম ভার্সন গোগলে খুঁজে পাবেন। চাইলে যে কেউ প্রাথমিকভাবে ব্যবহার করে দেখতে পারেন। দ্বিতীয় ভার্সনটি ১৬ ডিসেম্বর উদ্বোধন করা হবে। যার মাধ্যমে সারা দেশব্যাপি আপনি আপনার পণ্য বেচাকেনা করতে সক্ষম হবেন এই চুম্বকের মাধ্যমে। ক্ষুদ্র ব্যবসা সফল হোক ।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •