বড়লেখা পৌরসভা নির্বাচন আ’লীগ ধরে রাখতে আর বিএনপি পুনরুদ্ধারে মরিয়া

Published: 19 December 2020, 12:12 PM

আব্দুর রব, বড়লেখা : বড়লেখা পৌরসভা নির্বাচনের প্রচারণা জমে উঠেছে।

পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রী শাহাব উদ্দিন এমপির শহরে আওয়ামী লীগ মেয়রপদটি ধরে রাখতে আর বিএনপি হারানো মেয়র পদ পুনরুদ্ধারে কোমর বেধে কনকনে শীতে নির্ঘুম প্রচারণা চালাচ্ছে। বসে নেই স্বতন্ত্র প্রার্থীও, ব্যক্তি ইমেজকে পুঁজি করে কর্মী-সমর্থক নিয়ে ভোটারের সর্মথন আদায়ে চসে বেড়াচ্ছেন পৌরসভার একপ্রান্ত থেকে অন্য প্রান্তে। সময় ঘনিয়ে আসার সাথে মাঠে-ময়দানে বাড়ছে নির্বাচনী উত্তাপ।

আগামী ২৮ ডিসেম্বর প্রথম ধাপে ইভিএমে বড়লেখা পৌরসভার ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। ২০০১ সালের ১৪ জুন স্থাপিত এ পৌরসভার ৯টি ওয়ার্ডের বর্তমান ভোটার সংখ্যা ১৫ হাজার ৪৪৩।

পৌরমেয়র পদে আ’লীগ মনোনিত প্রার্থী বর্তমান মেয়র আবুল ইমাম মো. কামরান চৌধুরী নৌকা প্রতীক নিয়ে, বিএনপি মনোনিত ধানের শীষ নিয়ে পৌর বিএনপির সভাপতি সাংবাদিক আনোয়ারুল ইসলাম ও স্বতন্ত্র মেয়রপ্রার্থী ব্যবসায়ী সাইদুল ইসলাম মোবাইল ফোন প্রতীক নিয়ে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করছেন ।

জানা গেছে, ২০১১ সালের ১৮ জানুয়ারীর পৌর-নির্বাচনে উপজেলা যুবদলের সাবেক সাধারণ সম্পাদক প্রভাষক ফখরুল ইসলাম তৎকালীন মহাজোট (আ’লীগ) প্রার্থী রফিকুল ইসলাম সুন্দরকে হারিয়ে দ্বিতীয় পৌরপিতা নির্বাচিত হওয়ায় মেয়র পদটি দখলে নেয় বিএনপি। ২০১৫ সালের ৩০ ডিসেম্বরের নির্বাচনে আ’লীগ তাদের হারানো মেয়রপদটি পুনরুদ্ধার করে। ৪০৩৮ ভোট পেয়ে মেয়র নির্বাচিত হন জেলা যুবলীগের তৎকালীন সহসভাপতি আবুল ইমাম মো. কামরান চৌধুরী। এবারও তিনি দলীয় মেয়রপ্রার্থী। আ’লীগ তাদের মেয়রপদ ধরে রাখতে কোমর বেধে মাঠে নেমেছে। মহিলা লীগসহ দলের সর্বস্তরের নেতাকর্মী ভোটারের সমর্থন আদায়ে ঝাপিয়ে পড়েছেন।

এদিকে ২০১৫ সালে হারানো মেয়রপদটি পুনরুদ্ধারে মরিয়া বিএনপি। দলীয় প্রার্থী আনোয়ারুল ইসলামকে বিজয় মালা পরাতে উপজেলা বিএনপির সভাপতি আব্দুল হাফিজ, সাধারণ সম্পাদক মুজিবুর রহমান খছরু, বিএনপি নেত্রী ও উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান রাহেনা বেগম হাসনা ছাড়াও বিএনপি, যুবদল, ছাত্রদল, শ্রমিক দল, স্বেচ্ছাসেবক দলের নেতাকর্মীরা শীতের ভোর থেকে গভীর রাত অবধি ভোটারের দ্বারে দ্বারে প্রচারণা চালাচ্ছেন।