জুড়িতে বন্ধ করা যাচ্ছে না টিলা কাটা

Published: 23 November 2020, 5:50 PM

জুড়ি প্রতিনিধি : ধরন পাল্টে এখন রাতের আঁধারে কাটা হচ্ছে টিলা।

এরকম অহরহ তথ্য এসেছে মৌলভীবাজারের জুড়ী উপজেলায়। বসতি স্থাপন করতে টিলা কাটা অথবা টিলা কেটে সে মাটি দিয়ে ভরাট করে ঘর নির্মাণের জন্য মূলত এসব টিলা কাটা হচ্ছে বলে টিলার মালিকরা জানান। তবে সরকারের আইন অনুযায়ী পরিবেশের ক্ষতি থেকে দেশকে বাচাঁতে টিলা কাটা অপরাধ হিসেবে গণ্য হয়। বিভিন্ন সময় জরিমানা করা হলেও কোন অবস্থাতেই বন্ধ হচ্ছে না এসব টিলা কাটা। এ রকম তথ্য পেয়ে জুড়ীর চাটেরার কাজল মিয়াকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করেন ইউএনও আল ইমরান রুহুল ইসলাম। এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, দিনে টিলা কাটতে প্রশাসনের কেউ দেখতে পারেন এ ভয়ে রাত ৯ টা থেকে ৪ টা পর্যন্ত টিলা কেটে ঘর তৈরীর জায়গা করছেন তিনি।
গোপন সূত্রে খবর পেয়ে আজ সোমবার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সেখানে মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করে মাটি ও বালু মহাল আইনে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করেন।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আল ইমরান রুহুল ইসলাম বলেন, “গ্রিন জুড়ী ক্লিন জুড়ী” নিশ্চিতকরণের অংশ হিসেবে টিলা কাটা প্রতিরোধে নিয়মিত অভিযান চলছে, পাশাপাশি পলিথিনসহ পরিবেশের জন্য ক্ষতিকর বিষয়াদির বিরুদ্ধে পর্যায়ক্রমে কার্যকর ব্যবস্থা নেয়া হবে।

পরিবেশ অধিদপ্তরের ২০১০ সালের বালু মহাল ও মাটি ব্যবস্থাপনা আইন অনুযায়ী সরকারের অনুমতি ছাড়া বালু উত্তোলন ও পাহাড় কাটা দন্ডনীয় অপরাধ। এ আইন অমান্যকারীকে সর্বোচ্চ দুই বছর কারাদণ্ড এবং সর্বোচ্চ ১০ দশ লক্ষ টাকা জরিমানার বিধান রয়েছে।