রাস্তার ধারে কটোনাস্টার গাছ লাগাতে বলছেন ব্রিটিশ বিজ্ঞানীরা

Published: 22 February 2021, 10:32 AM

পোস্ট ডেস্ক : জীবনমান উন্নয়নের পাশাপাশি পরিবেশকেও ঝুঁকিতে ফেলছে গাড়ি ও যানবাহন।

এগুলোতে যেসব জ্বালানি ব্যবহার করা হয় তার বেশির ভাগই বায়ুদূষণের অন্যতম কারণ। সম্প্রতি কিছু বৈদ্যুতিক গাড়ি তৈরি হলেও এখনো ব্যাপকভাবে হচ্ছে খনিজ জ্বালানি তেলের ব্যবহার। ফলে বায়ুদূষণ থেমে নেই। এর থেকে কিছুটা রেহাই দেয় উদ্ভিদ।
জীবনমান উন্নয়নের পাশাপাশি পরিবেশকেও ঝুঁকিতে ফেলছে গাড়ি ও যানবাহন। এগুলোতে যেসব জ্বালানি ব্যবহার করা হয় তার বেশির ভাগই বায়ুদূষণের অন্যতম কারণ। সম্প্রতি কিছু বৈদ্যুতিক গাড়ি তৈরি হলেও এখনো ব্যাপকভাবে হচ্ছে খনিজ জ্বালানি তেলের ব্যবহার। ফলে বায়ুদূষণ থেমে নেই। এর থেকে কিছুটা রেহাই দেয় উদ্ভিদ।

তবে এবার বায়ুদূষণ রোধে একটা সুখবর দিয়েছেন বিজ্ঞানীরা। এজন্য রাস্তার ধারে বিশেষ গুল্মজাতীয় উদ্ভিদ কটোনাস্টার রোপণ করার পরামর্শ দিয়েছেন তারা।

অন্য যে কোনো গাছের তুলনায় সর্বাধিক পরিমাণে বড় রাস্তায় চলাচলকারী যানবাহনের কালো ধোঁয়া শোষণ করে ঝোপালো ও পশমি পাতাযুক্ত এই কটোনাস্টার গাছ। একে তাই ‘সুপার-প্লান্ট’ বলেও ডাকা হচ্ছে।

বায়ুদূষণ রোধে গাছের কার্যকারিতা নিয়ে বহুদিন ধরে গবেষণা করছে ব্রিটেনের দ্য রয়্যাল হর্টিকালচার সোসাইটি। এর বিজ্ঞানীরা কটোনাস্টার গাছ নিয়েও গবেষণা করেছেন। মাঝারি উচ্চতার এই গুল্ম অন্যান্য উদ্ভিদের চেয়ে গাড়ির ধোঁয়া শোষণে ২০ শতাংশ বেশি কার্যকর বলে বিশেষজ্ঞরা দাবি করেছেন।

গবেষকরা বলেন, নগরীর ব্যস্ত সড়কগুলোতে গাড়ির নিঃসরণ করা ধোঁয়া কটোনাস্টারের ঘন ও চিকন পাতার সাহায্যে ছাঁকার ক্ষমতা অবিশ্বাস্য। একটি গাড়ি ৫০০ মাইল চলার পথে যে পরিমাণ ধোঁয়া বাতাসে ছাড়ে, তা মাত্র সাত দিনে শোষণ করতে পারে এ উদ্ভিদ।

দ্য গার্ডিয়ান জানিয়েছে, কটোনাস্টার নিয়ে গুরুত্বপূর্ণ এই গবেষণাটি পরিবেশগত সমস্যাগুলো যেমন- বায়ুদূষণ, বন্যা ও দাবদাহ এবং বন-জঙ্গল ও সবুজ বনায়নের সমাধানের লক্ষ্যে কাজের অংশ হিসাবে করা হয়েছে। গবেষণায় বায়ুদূষণ রোধে কটোনাস্টার আদর্শ ও বিস্ময়কর গাছ হিসাবে অভিহিত করা হয়েছে।

এটি রোপণ করে একই সঙ্গে শব্দদূষণও কমানো সম্ভব বলে দাবি করেছেন সোসাইটির প্রধান গবেষক ড. তিজানা ব্লানুসা। তিনি বলেন, বায়ুদূষণ রোধে উদ্ভিদের ভূমিকা জানতে দুই হাজার ৫৬ জন মানুষের মধ্যে জরিপ চালিয়েছে দ্য রয়্যাল হর্টিকালচার সোসাইটি।

এতে ধোঁয়া ছেঁকে বায়ুদূষণমুক্ত করার ক্ষেত্রে কটোনাস্টারের উল্লেখযোগ্য কার্যকারিতা পাওয়া গেছে। পরিবেশের সব থেকে গুরুত্বপূর্ণ তিনটি উপাদান হচ্ছে মাটি, পানি এবং বায়ু। মানুষ, উদ্ভিদ এবং জীবজন্তু সবকিছুর বেঁচে থাকার জন্য সুস্থ পরিবেশ প্রয়োজন। পরিবেশ আমাদের সুস্থভাবে বেঁচে থাকার শক্তি জোগায়।

  • 3
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    3
    Shares