বড়লেখায় ইলেকট্রনিক পদ্ধতিতে মুক্তিযোদ্ধাদের সম্মানী ভাতা প্রদান কার্যক্রমের উদ্বোধন করলনে প্রধানমন্ত্রী

Published: 15 February 2021, 2:31 PM

বড়লেখা প্রতিনিধি : মুক্তিযোদ্ধাদের সম্মানী ভাতা ইলেক্ট্রনিক পদ্ধতিতে প্রদান কার্যক্রমের উদ্বোধনী অনুষ্ঠান সোমবার দুপুরে ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত হয়।

বঙ্গভবন থেকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশের ৫টি উপজেলায় অনলাইনে যুক্ত হন। বড়লেখার বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সাথেও তিনি অনলাইনে যুক্ত হয়ে কথা বলেন।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. শামীম আল ইমরানের সঞ্চালনায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বড়লেখা উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ড কাউন্সিলের সাবেক কমান্ডার ও ইলেক্ট্রনিক পদ্ধতিতে সম্মানী ভাতাপ্রাপ্ত মুক্তিযোদ্ধা মুহাম্মদ সিরাজ উদ্দিনের সাথে ভিডিও কনফারেন্সে কথা বলেন। মুক্তিযোদ্ধা সিরাজ উদ্দিন বলেন, বড়লেখায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের অনেক স্মৃতি রয়েছে। তিনি ১৯৭০ সালের নির্বাচনে তিনটি স্থানে প্রচারণায় অংশগ্রহণ করেন। এর আগে আরো দুইবার তিনি বড়লেখায় আসেন। আওয়ামী লীগ সরকারের আমলেই মুক্তিযোদ্ধাদের মূল্যায়ন শুরু হয়। যা আজও অব্যাহত রয়েছে।

ইউএনও শামীম আল ইমরান প্রধানমন্ত্রীকে জানান, বড়লেখা উপজেলায় ৪০৯ জন বীর মুক্তিযোদ্ধা ও প্রয়াত মুক্তিযোদ্ধাদের ওয়ারিশগনের মধ্যে ইলেক্ট্রনিক পদ্ধতিতে আপনার মাধ্যমে ভাতা সম্মানী ভাতা বিতরণ করা হবে। এ উপজেলার বীর মুক্তিযোদ্ধাদের কল্যাণে আপনার উপহার হিসেবে ২ কোটি ২০ লক্ষ টাকা ব্যয়ে ৩ তলা বিশিষ্ট মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্স নির্মাণ করা হয়েছে।

উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত ভিডিও কনফারেন্সে বীর মুক্তিযোদ্ধাবৃন্দ ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রী শাহাব উদ্দিন, মৌলভীবাজার জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মিছবাহুর রহমান, জেলা প্রশাসক মীর নাহিদ আহসান, পুলিশ সুপার জাকারিয়া আহমদ, বড়লেখা উপজেলা চেয়ারম্যান সোয়েব আহমদ, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক (ভারপ্রাপ্ত) রফিকুল ইসলাম সুন্দর, সহকারী কমিশনার (ভুমি) নুসরাত লায়লা নীরা, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান তাজ উদ্দিন, থানার ওসি জাহাঙ্গীর হোসেন সরদার, প্রেসক্লাব সভাপতি অসিত রঞ্জন দাস, সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট গোপাল দত্ত প্রমুখ। এছাড়াও প্রশাসনের বিভিন্ন দপ্তরে কর্মকর্তাবৃন্দ, জনপ্রতিনিধিবৃন্দ, প্রিন্ট ও ইলেক্ট্রনিক মিডিয়ার সাংবাদিকবৃন্দও উপস্থিত ছিলেন।